আজকের দিনে তিরোধান ইংরেজি রোমান্টিক কবি 23nth February শ্রদ্ধাঞ্জলি জানাই ✍📕💐🎎
💐শ্রদ্ধাঞ্জলি 🙏 - সৌন্দর্যের পূজারি কবি জন কিটস ‘ বিউটি ইজ টুথ , টুথ বিউটি ' চিরন্তন প্রবাদ হিসেবে স্বীকৃতি পাওয়া এই | চরণের কবি আর কেউ নন , চিরকালীন সৌন্দর্যের পূজারি কবি মারা যান । টানা তিন মাস ভাইয়ের সেবা করে জন কিটস । তার জীবন কথা কিটস নিজেই দুর্বল হয়ে পড়েন । ১৮১৯ সালের লিখেছেন সেলিম কামাল বসন্তে তার দেহেও ক্ষয়রোগের জরুণ স্পষ্ট হয়ে ওঠে । এর পরই কিটসের জীবনে দুর্যোগের ঘনঘটা নেমে আসতে শুরু করে । জন্ম ও পরিবার । ১৭৯৫ সালের ৩১ অক্টোবর বিটসের জন্ম প্রেমে ব্যর্থতা । লড়নের এক আস্তাবলে । বাবা টমাস বিটুস প্রথমে রক্ত - মাংসের মানুষ তিনি । তাই সুস্বাস্থ্য নিয়েও ভাড়াটে আস্তাবলে কাজ তেন । পরে তিনি সেই মানিব্রাউনি নামের এক তন্বী তরুণীর প্রেমে পড়ে | আস্তাবলের মালিরে মেয়েকে বিয়ে করে সেই যান । একে তাে ছােট ভাইয়ের সেবা করে স্বাস্থ্য | প্রতিষ্ঠানের মালিক হয়ে যান । কিটসরা ছিলেন চার তা তার । তার ওপর সে সময়ে তিনি চরম অর্থ ভাই ও এক বােন । কিটসের বাবার আর্থিক অবস্থা সনটি পড়েন । এ অবস্থায় অল্প সংকট কাটানাের । বেশ ভালাে ছিল । পড়ালেখার জন্য ছেলেদের তিনি জন্য ভাবেন , জাহাজের সার্জন হবেন । এ সময় বন্ধু । হান্নাতে পাঠাতে চেয়েছিলেন । বিন্তু বাবার সে স্বপ্ন ব্রাউন একটি নাটক লিখে বেশ সুনাম অর্তন | পুরণ হয়নি । বি - টসকে তিনি এনফিল্ডের জন । করেন । বিটুসকে তিনি পন্নামর্শ দেন , দুজন মিলে | ক্লাবে গেল = তি করে দেন । ফুল টা ছােট হলেও নাটক লিশে মায়ান করবেন । এ কাজে তান্না | এর কার্যক্রম ছিল বেশ আধুনিক ও নান্দনিক । কিছুটা সফলও হন । যে সময়টাতে একদিকে তিনি ক্লার্কের পরিবারের পরিবেশ ছিল ভিন্ন ধরনের । রােগে ক্লাবনী শক্তি হান্নাই , তুণছেন আর্থিক সেখানে ক্লার্কের ছেলে চালস কাড়নের সঙ্গে টানাপােড়েনে , ঠিক তুলনই অত্যন্ত গােপনীয়তার | কিটসের পরিচয় হয় । কাউনড়েন ছিলেন সঙ্গী তুলে | সঙ্গে তার পছন্দের সেই ফানি ব্রাউনির অন | ত্র | তিনি প্রথম কিটসের কবি - মন ও প্রতিভাকে হন । বিছুদিন চিকিৎসাবিদ্যা শেখেন । কিন্তু এ কাব্যগ্রন্থটি । এতে স্থান পায় মেষপালক এবং বাগদান হয়ে যায় । প্রচণ্ড আঘাত পান কিটস , জাগিয়ে তুলতে সাহায্য করেন । বাজে মনােনিবেশ করতে পারেননি । তিনি নিজেই চন্দ্রদেবীর প্রেমকাহিনী । মানসিকভাবে ভেঙে পড়েন । ভাঙতে হ ' কে তার বুঝতে পাল্লেন , চিকিৎসাবিদ্যা শিক্ষা তার নাও । মা - বাবার মৃত্যু এবং নয় । সাহিত্যের প্রতি প্রবল আগ্রহ থেকে সাহিত্য প্রকৃতির সঙ্গে যখন সখ্য এপ্রিল ১৮০৪ সালে কিটসের বাবা যখন চর্চায় মনােনিবেশ করেন তিনি । এই ১৮১৪ কিটসের জীবনে একটি গুরুত্বপূর্ণ পরিবর্তন আসে একসময় চলে গেলেন ক্ষয়রোগে মারা যান তখন কিটসের বয়স মাত্র সালেই , যখন তার বয়স মাত্র উনিশ , তখন তিনি যখন তিনি স্কটল্যান্ডে বন্ধু চার্লসের সঙ্গে বেড়াতে কিটসের শেল্প কাব্যগ্রন্থটি প্রকাশিত অয় । শলাই । আট বছর । মা দ্বিতীয় বিয়ে করেন । কিন্তু মায়ের রচনা করেন ব্যান ইমিটেশন অব স্পেনসার । যান । বেড়ানাের জন্য লেকের পাশের গ্রামগুলাে ১৮২০ সালে । এটি প্রকাশিত হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে | সেই বিয়ে সুখের ছিল না । ফলে তিনি বাবার বাড়ি এটিই তার প্রথম রচনা । তারা বেছে নেন । ১৮১ সালের জুন - আগস্টের ইতিবাচক সাড়া পান তিনি । কিন্তু বইটি বিক্রি হয় | ফিরে আসেন । ১৮১০ সালে মাত্র ক্ষয়রােগে মান্না । গ্রীষ্ম - গলের এ এমলে সেগনাশার পরিবেশের সঙ্গে ধীরগতিতে । তখন ডাক্তারের পরামর্শে স্বাস্থ্যের | যান । কিটসের বয়স তখন ১৪ বছর । মা মারা । প্রথম কাব্যগ্রন্থ কিটসের বেশ সখ্য গড়ে উঠেছিল । সেখানে বিভিন্ন উন্নতি ও মানসিক স্থিতিশীলতার জন্য তিনি ইতালি যাওয়ার সময় সন্তানদের তিনি দাদি ঝাছে রেখে তার প্রম কবিতার বই প্রাশিত হয় ৩ মার্চ মানুষের সঙ্গে তিনি পরিচিত হয়েছিলেন এবং ভ্রমলের সিদ্ধান্ত নেন । জন টেইলর যিনি তার শেষ যান । দাদি কিটসনে বিদ্যালয় থেকে নিয়ে এসে ১৮১৭ সালে । বইটির নাম ' পােয়েমস ' । বইটি জেনেছিলেন নানারকম মানুষের বিচিত্র চরিত্র - বই প্রকাশ করেছিলেন তাতে ইতালি ভ্রমনের এক ডাক্তারের অধীনে শিক্ষানবিশের কাজে নিযুক্ত তিনি লে ছটকে উৎসর্গ করেন । বইটির কয়েকটি প্রকৃতি সম্পর্কে । জন্য আর্পিৰু সহায়তা দেন । বিটুস মন ত্যাগ করেন । বিখ্যাত কবিতা হচ্ছে - এন মা লুকিং ইনটু করেন ১৭ সেরে ১৮২০ সালে । প্রায় একমাস । জীবনে আবার দুর্যোগ । লেগে যায় তার ইতালি পৌছতে । ততদিনে তার সাহিত্যচর্চায় মনােযােগ শুরু লিটল হিল ইতালি । ১৮১৮ সালের শেষের দিকে তিনি তার ছােট ভাই ক্ষয়রোগ এর মারাখক আকার ধারণ করে । ১৮১৪ সালে তিনি চিকিৎসাবিদ্যা শেখার জনা এরপর টিস্ দীদী কবিতা লিখতে শুরু করেন । ঢামের সেবায় ব্যস্ত সময় কাটান । টম তখন ১৮২১ সালের ২৩ ফেব্রুয়ারি জাদিত করি । | লন্ডনের সেন্ট টমাস মেডিকেল কলেজে ভর্তি এবার তিনি লিখলেন এন্ডিমিয়ান নামের ক্ষয়রােগে আক্রান্ত । একই সালের ১ ডিসেম্বর টম কিটন্স পৃথিবী ছেড়ে চলে যান । - ShareChat
169 জন দেখলো
11 মাস আগে
অন্য কোথাও শেয়ার করুন
Facebook
WhatsApp
লিংক কপি করুন
মুছে ফেলুন
Embed
আমি এই পোস্ট এর বিরুদ্ধে, কারণ...
Embed Post