সপ্তম দফার ভোট শেষ হওয়ার দুইদিন পর উত্তর প্রদেশের চান্ডৌলিতে, পাঞ্জাবে, ঝাঁসিতে বহু ট্রাক ভর্তি ইভিএম ও ভিভিপ্যাট মেশিন স্ট্রংরুমের প্রবেশের মুখে কিছু ট্রাক ধরা পড়ার পর "নির্বাচন (চৌকিদার কা তাঁবেদারি) কমিশন " কানার দিন রাতের মতো = বিরোধী 22 দলের...84 টি (ভিডিও প্রমানসহ) অভিযোগের বক্তব্য পেশ করল 'সিসি ক্যামেরা লাগানো ছিল, আধা সেনারা চৌকিদারিতে ছিল ৷ কিন্তু যে 16 লক্ষ অতিরিক্ত ইভিএম ও ভিভিপ্যাট বেশি তৈরি করেছিলাম, এগুলো সেই মেসিন ৷ যা ধরা পড়েছে ট্রাকে, দোকানে, স্ট্রংরুমের পথে ৷ আসলে পাকিস্তান এই ইভিএম গুলো চুরি করেছিল, আপ কি বার চৌকিদার সরকারকে হারাবে বলে ৷ কিন্তু কারচুপি ধরা পড়ে গিয়েছে ৷ সচ্চ ভারত অভিযান ৷ আপ কি বার লন্ডনে চোর সরকার ৷
নির্বাচনী ফলাফল - বিজেপি অফিসে ধর্ষণের চেষ্টা এই সময় , কৃষ্ণনগর : রানাঘাট লােকসভা লােকসভার বিজেপি প্রার্থীর হয়ে নিজের জন্য টানাটানি করে । কোনওক্রমে দরজা কেন্দ্রে প্রার্থী নিয়ে জটিলতা কাটার পর এলাকায় প্রচারের জন্য রানাঘাটের খুলে পালাতে সক্ষম হই । পরে জেলা এ বার নতুন সমস্যায় বিজেপি । দলীয় অফিসে প্রচারের সরঞ্জাম নিতে নেতৃত্বকে জানানাের পরেও কোনও | দলীয় কার্যালয়ের ভিতরে এক মহিলা এসে তাঁকে ধর্ষণের চেষ্টা করা হয় বলে পদক্ষেপ না হওয়ায় সােমবার রানাঘাট কর্মীকে ধর্ষণের চেষ্টার অভিযােগ উঠেছে । পুলিশের কাছে দায়ের করা অভিযােগ মহিলা থানায় লিখিত অভিযােগ । বিজেপির এক জেলা নেতার বিরুদ্ধে । পত্রে জানিয়েছেন চাকদহের বাসিন্দা ওই দায়ের করি । বিজেপির নদিয়া দক্ষিণ | রানাঘাটে বিজেপির নদিয়া দক্ষিণ মহিলা বিজেপি কর্মী । সাংগঠনিক জেলার সভাপতি তথা । সাংগঠনিক জেলার অফিস সম্পাদক রানাঘাট লােকসভার প্রার্থী জগন্নাথ | রাখাল সাহার বিরুদ্ধে ওই অভিযােগ । | রানাঘাট সরকার অবশ্য বলেন , এ নিয়ে ওঠায় ভােটের মুখে চরম অস্বস্তিতে আমার কাছে কেউ কোনও অভিযােগ পড়েছে বিজেপির জেলা নেতৃত্ব । তিনি বলেন , ভােটের প্রচারের জানায়নি । তবে দলের কারও বিরুদ্ধে অভিযোেগ , কয়েক দিন আগে ওই ঘটনার জন্য ফ্লেক্স , ব্যানার ও দলীয় পতাকা এমন অভিযােগ উঠলে আইন তার পর বিচার চেয়ে জেলা নেতৃত্বের দ্বারস্থ ইত্যাদি নিতে আমি রানাঘাটের দলীয় ব্যবস্থা নেবে । হয়েছিলেন ওই মহিলা । কিন্তু দেখছি , অফিসে এসেছিলাম । সেই সময় রানাঘাট জেলা অফিসের সম্পাদক দেখব ’ করে তাঁকে ঝুলিয়ে রাখা হয় অফিসে থাকা রাখাল সাহা আমাকে রাখাল সাহা বলেন , “ আমাকে ফাঁসানাে বলে অভিযােগ । জেলা বিজেপি নেতাদের একটি ঘরের ভিতর ঢুকিয়ে দরজা বন্ধ হচ্ছে । ওই ধরনের কোনও ঘটনা কাছে বিচার না পেয়ে শেষ পর্যন্ত রানাঘাট করে কুপ্রস্তাব দিয়েছিলেন । অর্থের ঘটেনি । অভিযােগ একদমই ভিত্তিহীন । মহিলা থানায় অভিযােগ দায়ের করেন প্রলােভন দেখিয়েছিলেন । সেই প্রস্তাবে ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে রানাঘাট | দলের ওই মহিলা কর্মী । রানাঘাট রাজি না হওয়ায় আমাকে ধর্ষণের চেষ্টার মহিলা থানার পুলিশ৷ - ShareChat
579 জন দেখলো
4 মাস আগে
অন্য কোথাও শেয়ার করুন
Facebook
WhatsApp
লিংক কপি করুন
মুছে ফেলুন
Embed
আমি এই পোস্ট এর বিরুদ্ধে, কারণ...
Embed Post