#বিজেপি - BJP #সি পি আই এম #তৃণমূল কংগ্রেস -TMC #কংগ্রেস #🌞সুপ্রভাত
বিজেপি - BJP - স্বাধীনতা দিবসে জনসংখ্যা নিয়ন্ত্রণের ঘােষণাও করলেন প্রধানমন্ত্রী তিন বাহিনীর মাথায় চিফ অফ আর্মি স্টাফ কেন তারা এটা করেনি ? কেন এতদিন অস্থায়ী করে রাখা হয়েছিল এই ধারা ? অর্থাৎ এই দলও জানত যে , এটা ঠিক নয় । কিন্তু সংবিধান সংশােধনের সাহস তাদের ছিল না । এরা সব সময় ক্ষুদ্র রাজনৈতিক স্বার্থের কথা ভেবেছে । কিন্তু আমার কাছে সবার আগে দেশ । দেশের আগে রাজনৈতিক ভবিষ্যৎ বলে কিছু নেই । ” | তিন তালাক রদের কথা উল্লেখ করে মােদি বলেন , “ বহু মুসলিম দেশও তালাক প্রথা উচ্ছেদ করেছে । আমরা যদি দেশ থেকে সতীদাহ প্রথা তুলে দিতে পারি , বাল্যবিবাহ রদ করতে পারি , পণপ্রথার বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে পারি তা হলে তিন তালাকের বিরুদ্ধে কেন প্রতিবাদ জানাতে পারব না ? তিন তালাকের মতাে নির্মম এক প্রথা রদ হওয়ায় মুসলিম মা - বােনেরা সুরক্ষিত হয়েছেন । তাদের অধিকার সুনিশ্চিত হয়েছে । এতদিন তারা যে ভয় - ভীতির জীবন কাটাতেন তা দূর হয়েছে । ” যথারীতি মােদি এদিন এক দেশে এক নির্বাচনের পক্ষেও সওয়াল করেছেন । প্রধানমন্ত্রী জানিয়েছেন , দেশের উন্নতির জন্য ‘ এক দেশ , এক নির্বাচন প্রথা চালু করা অত্যন্ত জরুরি । দেরিতে হলেও এ বিষয়ে আলােচনা শুরু হয়েছে । দেশে জনবিস্ফোরণ ঠেকাতে দেশবাসীকে পরিবার পরিকল্পনা করার পরামর্শ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী । মােদি বলেছেন , “ পরিবার ছােট রাখাই দেশভক্তির পরিচয় । সন্তানের স্বপ্ন সফল করতে হলে পরিবার ছােট রাখাই প্রয়ােজন । ” দেশের অর্থনীতিকে ৫০০ লক্ষ কোটি মার্কিন ডলারের অর্থনীতিতে পৌছে দিতে বিনিয়ােগ , পরিকাঠামাে , স্বাস্থ্য , শিক্ষা , চিকিৎসা - সহ সব ক্ষেত্রে লালকেল্লায় ছাত্র - ছাত্রীদের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মােদি । স্বাধীনতা দিবসে । — পিটিআই । উন্নয়নের জোয়ার আনার উপরে জোর দিয়েছেন । সেই লক্ষ্য পূরণ করতে তার নয়াদিল্লি : জম্মু কাশ্মীরের উপর থেকে জোরালাে হবে বলে প্রধানমন্ত্রীর দাবি । পরিবারতন্ত্র কায়েম করেছে আর সরকার সব ধরনের ব্যবস্থা নেবে বলে ৩৭০ ধারা বিলােপের পর বৃহস্পতিবার কাশ্মীর প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী বললেন , দুর্নীতি - স্বজনপােষণকে নিয়মে পরিণত আশ্বাস দিয়েছেন । প্রধানমন্ত্রী তাঁর দিল্লির লালকেল্লায় ৭৩ তম স্বাধীনতা “ ৩৭০ বিলােপ করার স্বপ্ন ছিল সর্দার করেছে । সে কারণেই কাশ্মীরের ভাষণে আরও একবার জল সংরক্ষণের । দিবসের ভাষণে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মােদি প্যাটেলের । আমরা বল্লভভাইয়ের সেই মহিলাদের এবং দলিত ভাই - বােনদের কথা বলেছেন । সাধারণ মানুষকে এ একাধিক বিষয়ে নিজের ও সরকারের স্বপ্নপূরণ করতে পেরেছি । ৭০ বছরে এতদিন কোনও অধিকার ছিল না । বিষয়ে সচেতন করতে একজন সন্তের মতামত জানালেন । শুরু থেকে শেষ যে কাজ হয়নি , ৭০ দিনেই সেই কাজ ওঁদের আশা - আকাঙ্ক্ষাকে কোনও কথা সামনে এনেছেন । এ প্রসঙ্গে মােদি পর্যন্ত মােদির ভাষণে ছিল রাজনীতির করেছে দ্বিতীয় মােদি সরকার । বাস্তবে গুরুত্বই দেওয়া হয়নি । ৩৭০ ধারা জানিয়েছেন , একশাে বছর আগে ওই ছোঁয়া । প্রধানমন্ত্রী এদিন যেমন তার সরকারের সাফল্য তুলে ধরেছেন , তেমনই আর একবার প্রকাশ্যে ৩৭০ বিলােপ করার স্বপ্ন এনেছেন বিরােধীদের ব্যর্থতার দিকগুলি । কাশ্মীরের সমস্যা জিইয়ে ছিল সর্দার প্যাটেলের । রাখার জন্য সরাসরি বিরােধীদের আমরা বল্লভভাইয়ের । কাঠগড়ায় তুলেছেন । তবে প্রধানমন্ত্রী সেই স্বপ্নপূরণ করতে এদিন সবচেয়ে বড় ঘােষণাটি করেছেন প্রতিরক্ষা সংক্রান্ত বিষয়ে । প্রধানমন্ত্রী পেরেছি । ৭০ বছরে যে এদিন লালকেল্লার ভাষণে বলেন , কাজ হয়নি , ৭০ দিনেই । “ আমাদের সেনাবাহিনী দেশের গর্ব । সেই কাজ করেছে দ্বিতীয় সেনাবাহিনীর প্রতিটি শাখার মধ্যে সমন্বয় আরও জোরালাে ও সুসংগঠিত মােদি সরকার । বাস্তবে । করতে চিফ অব ডিফেন্স স্টাফ নামক পরিণত হয়েছে এক দেশ , একটি নতুন সামরিক পদ তৈরি করতে এক সংবিধানের স্বপ্ন । চলেছে সরকার । এর ফলে সেনাবাহিনী আরও শক্তিশালী হবে । সেনাকর্তারা রাখিবন্ধন উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রীকে রাখি বাঁধলেন হাওড়ার ইসরত জাহান । বহু দিন ধরেই এই পদটি তৈরি করার মুনি লিখে গিয়েছিলেন যে , একদিন জন্য সরকারকে পরামর্শ দিচ্ছিলেন । পরিণত হয়েছে এক দেশ , এক বিলােপের কারণেই আজ দেশবাসী এদেশের মানুষকে জল কিনে খেতে তাদের সেই পরামর্শ মেনেই এবার সংবিধানের স্বপ্ন । ৩৭০ এবং ৩৫এ ধারা এক দেশ , এক সংবিধানের কথা বলতে হবে । একই সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী কেরল , তিনটি বিভাগের সমন্বয়সাধনের জন্য বিলােপ হয়েছে । পাস হয়েছে জম্মু - পারছেন । ” নতুন ভারতের স্বপ্ন দেখিয়ে কর্নাটক , গুজরাত , মহারাষ্ট্রের বিস্তীর্ণ এই বিশেষ পদটি তৈরি করতে চলেছে কাশ্মীর পুনর্গঠন বিল । জম্মু - কাশ্মীর কাশ্মীরের সার্বিক উন্নয়ন , স্থায়ী শান্তি ও এলাকার বানভাসি মানুষের পাশে সরকার । ” চিফ অব ডিফেন্স স্টাফ এবং লাদাখের মানুষের আশা - সমৃদ্ধির বার্তা দিয়ে উপত্যকার মানুষের থাকার বার্তা দিয়েছেন । প্রধানমন্ত্রী হলেন , সরকারের সঙ্গে স্থলবাহিনী , আকাঙ্ক্ষা পূরণ করা আমাদের সবার পাশে থাকার আশ্বাস দিয়েছেন বলেছেন , “ আমরা যখন স্বাধীনতা দিবস নৌবাহিনী ও বিমানবাহিনীর প্রধান দায়িত্ব । এই দায়িত্ব পালনে যত বাধা প্রধানমন্ত্রী । কাশ্মীর প্রসঙ্গে সরাসরি উদযাপন করছি , তখন দেশের বেশ সংযোেগরক্ষাকারী অফিসার । তিনটি এসেছে , আমরা সেগুলি দুর করার চেষ্টা কংগ্রেসের নাম করে এই দলকে কটাক্ষ কয়েকটি রাজ্যের বহু মানুষ ভয়ঙ্কর বিভাগের ক্ষেত্রেই সিদ্ধান্ত প্রণয়নের করেছি । গত ৭০ বছরের একটি দল ও করে বলেন , “ একটি দল এক সময় বন্যার কবলে পড়েছেন । কেন্দ্রের পক্ষ ক্ষমতা থাকবে তার হাতে । ফলে সেই দলের সরকার শুধু বিচ্ছিন্নতাবাদ বিপুল জনসমর্থন নিয়ে সরকার থেকে তাদের সব রকম সাহায্য করা বাহিনীর তিনটি বিভাগের ঐক্য আরও ও সন্ত্রাসবাদে মদত দিয়েছে । গড়লেও ৩৭০ ধারাকে স্থায়ী করেনি । হবে । ” - ShareChat
10.7k জন দেখলো
6 মাস আগে
অন্য কোথাও শেয়ার করুন
Facebook
WhatsApp
লিংক কপি করুন
মুছে ফেলুন
Embed
আমি এই পোস্ট এর বিরুদ্ধে, কারণ...
Embed Post