@jhara_palok
@jhara_palok

🙇‍♀️🙇‍♀️ফেরারী মন 🙇‍♀️🙇‍♀️

আজও সহজ পাঠের নিয়মেই জল পড়ে, পাতা নরে হয়তো, কিন্তু রাতের শেষে দিন আসে না। আজও রক্ত আর মাংসের সহজ সমীকরণে কাম মেটে হয়ত, কিন্তু একটা প্রেম

এক অপ্রেমিকের জন্য ___তসলিমা নাসরিন অনেকগুলো বছর পেরিয়ে যাবে, তোমার সঙ্গে আমার আর দেখা হবে না। এক শহরেই, অথচ দেখা হবে না। পথ ভুলেও কেউ কারও পথের দিকে হাঁটবো না, আমাদের অসুখ বিসুখ হবে, দেখা হবে না। কোনও রাস্তার মোড়ে কিংবা পেট্রোল পাম্পে কিংবা মাছের দোকানে, বইমেলায়, রেস্তোরাঁয়, কোথাও দেখা হবে না। আরও অনেকগুলো বছর পর, ভেবে রেখেছি, যেদিন হুড়মুড় করে এক ঝাঁক আলো নিয়ে সন্ধ্যে ঢুকতে থাকবে আমার নির্জন ঘরে, যেদিন বারান্দায় দাঁড়ালে আমার আঁচল উড়িয়ে নিতে থাকবে বুনো বৈশাখি এক আকাশ চাঁদের সঙ্গে কথা বলবো যে রাতে সারারাত-- তোমাকে মনে মনে বলবোই সেদিন, কী এমন হয় দেখা না হলে, দেখা না হলে মনে হতো বুঝি বেঁচে থাকা যায় না, কে বলেছে যায় না, দেখ, দিব্যি যায়! তোমার সঙ্গে দেখা হয়নি কয়েক হাজার বছর, তাই বলে কি আর বেঁচে ছিলাম না? দিব্যি ছিলাম! ভেবেছি বলবো, তুমি তো আসলে একটা কিছুই-না ধরনের কিছু, আমার আকাংখা দিয়ে এঁকেছিলাম তোমাকে, আমার আকাংখা দিয়ে তোমাকে প্রেমিক করেছিলাম, আমার আকাংখা দিয়ে তোমাকে অপ্রেমিকও করেছি তোমাকে না দেখে লক্ষ বছরও বেঁচে থাকতে পারি! অপ্রেমিককে না ছুঁয়ে, অনন্তকাল। এক ফোঁটা চোখের জল বর্ষার জলের মতো ঝরে ধুয়ে দিতে পারে এতকালের আঁকা সবগুলো ছবি, তোমার নাম ধাম দ্রুত মুছে দিতে পারে চোখের জল। তোমাকে নিশ্চিহ্ন করে দিতে পারে। আমাকে একা বলে ভেবো না কখনো, তোমার অপ্রেম আমার সঙ্গে সঙ্গে থাকে।
#

📝প্রিয় লেখক

📝প্রিয় লেখক - ShareChat
321 views
1 days ago
#

📝 আমার গল্প

নিজেকে খুঁজতে গিয়ে- আমি তোকেই খুঁজেছি বারবার... যেমন তৃষ্ণার্থ পূজারী খোঁজে তার আরাধ্য দেবতার | আমি মন্দিরে গিয়েছি, মসজিদে গিয়েছি গির্জায় গিয়েছি বহুবার... আমি দেবী খুঁজতে গিয়ে- তোর মুখটা ছাড়া অন্য কিছু মনে করতে পারিনি আর | আমি বারবার চেয়েছি এ শরীর ভূমি হোক আবাদ করে যাস তুই তাতে... সমস্ত শরীর জুড়ে- প্রেমের চারাগাছ যেন জন্মায় অবাধে | ভালোবাসা খুব নির্মল একটা নদীর নাম শান্ত দিঘির মতো পেতে রাখা আঁচল, তবুও কেন জানি কেউ কেউ ছেড়ে চলে যায় রেখে যায় সমস্ত স্মৃতির অব্যক্ত কোলাহল | স্মৃতিরও কি কোনো সুর আছে ? বেজে যায় পোড়া বাঁশির সুরে বুকের বা পাশে এতো বড় নদী অথচ সমস্ত দেহ কেমন পিপাসায় মরে | বল তো, কোথায় রাখিস তোর শীতল দুটি হাত ? স্পর্শ চেয়ে তাকিয়ে থাকে আমার জ্বর তপ্ত ললাট | ললাটের লিখনও ক্রমাগত মুছে যায় অনাদরে ভালোবাসা শীতল হলে... ব্যথাও কেমন ঘুমিয়ে যায় দেখিস- সমগ্র বুকের পাঁজরে | হ্যাঙ্গার হয়ে ঝুলতে ঝুলতে- রোজ কেটে যায় বেলা কে আর কতোটা মনে রাখে- কার ঠোঁট বেয়ে অকাতরে নেমে আসে অবহেলা | কার ঠোঁটে বল জমে আছে মুক্তোর মতো রোদ ? কার ওমের মধ্যে লুকিয়ে আছে বল যাবতীয় ক্ষয় ? মিথ্যে যতো প্রলোভন, সব যেন অমৃত মনে হয় | জীবন নদের কিনারে এসে- আজ তাই চুপ করে বসে আছে কুয়াশা সময় ||
443 views
7 days ago
Share on other apps
Facebook
WhatsApp
Copy Link
Delete
Embed
I want to report this post because this post is...
Embed Post
Share on other apps
Facebook
WhatsApp
Unfollow
Copy Link
Report
Block
I want to report because