কোরান
#

কোরান

★ *যে মানুষের রাগ বেশি হয়, সে মানুষকে ভালোবাসে তত বেশি আর তার মনও সাফ হয়।(হজরত আলি রঃ)* 🌙🌙🌙🌙🌙🌙🌙🌙🌙 _যদি তুমি সারা *জীবনের মত কাউকে বন্ধুহিসেবে* পেতে চাও তাহলে তোমার মনে একটা কবর তৈরি করো যাতে তুমি তোমার বন্ধুর ভূল গুলো তোমার মনে দাফন করতে পারো।_ *(হজরত আলি রঃ)* 🌙🌙🌙🌙🌙🌙🌙🌙🌙 _বন্ধু যতই খারাপ হোকনা কেনো তার সাথে বন্ধুত্ব নষ্ট করো না কেননা পানি যতই খারাপ হউক না কেন সে তৃষনা মিটাতে না পারলেও আগুন ঠিক নিভিয়ে দেবে।_ *(হজরত আলি রঃ)* 🌙🌙🌙🌙🌙🌙🌙🌙🌙 _মানুষের মনে এমন ভাবে জায়গা করো মরে গেলেও সে যেন তোমার জন্য দোয়া করে, আর জীবিত থাকলে যেন দেখা করার আশা রাখে।_ *(হজরত আলি রঃ)* 🌙🌙🌙🌙🌙🌙🌙🌙🌙 _জীবনে কাউকে কোনদিন নিজের সবকিছু ভেবো না কেনোনা মানুষ যখন তোমায় ভালোবাসবে তখন তোমার সব ভূল আর খারাবি ভূলে যাবে আর যখন নফরত করবে তখন তোমার সব ভালো কাজ ভূলে যাবে।_ *(হজরত আলি রঃ)* 🌙🌙🌙🌙🌙🌙🌙🌙🌙 ★ *দুনিয়ার খুশিঃ--* 1) মা আর বাপ 2) নেক ছেলে মেয়ে 3) নেক বিবি 4) ভালো বন্ধু 🕌🕌🕌🕌🕌🕌🕌🕌🕌 ★ *আখেরাতের খুশিঃ--* 1) ইলম 2) পরহেজগারী 3) সদকা 4) নেক আমাল 🕌🕌🕌🕌🕌🕌🕌🕌🕌 ★ *শরীরের খুশিঃ--* 1) কম খাওয়া 2) কম শোওয়া 3) কম কথা বলা 4) কম হাঁসা 🕌🕌🕌🕌🕌🕌🕌🕌🕌 ★ *মনের খুশিঃ--* 1) সবর 2) জিকির করা(তসবি করা) 3) আল্লাহর শোকর আদায় করা 4) গৌর আর ফিকর করা 🕌🕌🕌🕌🕌🕌🕌🕌🕌 ★ *ইমানের খুশিঃ--* 1) হায়া (লজ্জা) 2) পাক থাকা (সাফ সুথরা থাকা) 3) সত্যের সাথে থাকা 4) ইনসাফ করা 🕌🕌🕌🕌🕌🕌🕌🕌🕌 🌟 *কিছু কিছু কথা যাতে আল্লাহ নারাজ হনঃ---* ‼ 1) মেয়েদের গালাগালি দেওয়া 2) মনে কারো জন্য হিংসা রাখা 3) ঘরে মেহমান দেখে নারাজ হওয়া 4) আজানের সময় কথা বলা আর কাজ করা 5) মা বাপের উপর কথা বলা 6) নামাজের পর দোয়া না করা 7) দাঁড়িয়ে পানি পান করা। 👇👇👇👇👇👇👇👇👇 *_কয়েকটা কথা যা জীবনে খুব ফায়দা দেবেঃ--_* 👉 যদি খুশি পেতে চাও তাহলে সময়ে ইবাদত করো। 👉 যদি মুখের রনক বাড়াতে চাও তাহলে তাহাজজুদ এর নামাজ পড়ো। 👉 যদি মনেতে সুকুন পেতে চাও তাহলে কুরআন পড়ো। 👉 যদি শরীর সুস্থ পেতে চাও তাহলে রোজা রাখো। 👉 যদি মুসিবত থেকে বাঁচতে চাও তাহলে আসতাগফার পড়ো। 👉 যদি ঘরে বরকত চাও তাহলে দরুদ শরিফ পড়ো। 👉 যদি সব মুশকিল শেষ করতে চাও তাহলে লা হাওলা ওলা কুওয়াতা ইল্লা বিল্লাহ পড়ো। 👉 যদি দুঃখ থেকে নাজাত পেতে চাও তাহলে দোয়া চাও আল্লাহর কাছে। ★★★ _আর যদি অনেক নেকি পেতে চাও তাহলে এই মেসেজ টা অন্য সবাই কে পাঠাও।_ _কেনোনা এটা হলো সদকায়ে জারিয়া।।_
271 views
5 months ago
#

কোরান

*একদিন হযরত মুহাম্মাদ (সাঃ)* *বিবি* *আয়েশা (রাঃ) কে* *ডেকে* *জিজ্ঞেস* *করলেন, হে আয়েশা,* *আজকে* *আমি* *অনেক খুশি, তুমি আমার কাছে* *যা* *চাইবে তাই দেব, বল তুমি কি* *চাও?* *.* *হযরত আয়েশা (রাঃ) চিন্তায়* *পড়ে গেলেন, হঠাৎ করে তিনি* *এমন কি চাইবেন, আর যা মন চায়* *তা তো চাইতে পারেন না! যদি* *কোন ভুল কিছু চেয়ে বসেন,* *নবীজী যদি কষ্ট* *পেয়ে যান? এমন* *অনেক প্রশ্নই মনে* *জাগতে লাগলো!* *আয়েশা (রাঃ) নবীজী কে* *বললেন, আমি কি আব্বুর কাছ* *থেকে কিছু পরামর্শ নিতে* *পারি?* *.* *নবীজী বললেন, ঠিক আছে তুমি* *পরামর্শ নিয়েই আমার কাছে* *চাও।* *আয়েশা (রাঃ) উনির আব্বু হযরত* *আবু বকর (রাঃ) এর কাছে পরামর্শ* *চাইলেন।* *.* *আবু বকর (রাঃ) বললেন, যখন কিছু* *চাইবেই, তাহলে তুমি মুহাম্মাদ* *(সাঃ) এর কাছে, মিরাজের* *রাতে আল্লাহ পাক রাব্বুল* *আ'লামীন* *এর সাথে হইছে এমন কোন গোপন* *কথা জানতে চাও।* *আর কথা দাও নবীজী* *যা বলবেন* *তা* *সর্বপ্রথম আমাকে জানাবে।* *.* *আয়েশা (রাঃ) নবীজী (সাঃ)* *এর কাছে* *গিয়ে মিরাজের রাতের কোন* *এক গোপন কথা জানতে* *চাইলেন, যা এখনও কাউকে বলেননি। মুহাম্মাদ (সাঃ) মুচকি* *হেসে দিলেন, বললেন বলে* *দিলে আর গোপন থাকে* *কি করে! একমাত্র আবুবকরই* *পারেন এমন বিচক্ষণ প্রশ্ন* *করতে।* *.* *মুহাম্মাদ (সাঃ) বলতে লাগলেন,* *হে* *আয়েশা আল্লাহ আমাকে* *মিরাজের* *রাতে বলেছেন, "হে মুহাম্মাদ* *(সাঃ) তোমার উম্মাতের* *মধ্যে যদি কেউ, কারো ভাংঙা* *যাওয়া মন জোড়া লাগিয়ে দেয়* *তাহলে আমি তাহাকে বিনা* *হিসাবে জান্নাতে পৌঁছে* *দেব।* *(সুবাহানাল্লাহ)* *.* *প্রতুশ্রুতি মত, আয়েশা (রাঃ)* *ইনার* *আব্বু হযরত আবুবকর (রাঃ) এর কাছে* *এসে নবীজীর বলে দেওয়া এই* *কথাগুলো বললেন।* *.* *শুনে আবুবকর (রাঃ) কাঁদতে শুরু* *করলেন। আয়েশা (রাঃ)* *আশ্চর্য* *হয়ে জিজ্ঞেস করলেন, আব্বু* *আপনি* *তো কত ভাংঙা যাওয়া মন* *জোড়া* *লাগিয়েছেন, আপনার তো* *সোজা* *জান্নাতে যাওয়ার কথা* *কাঁদছেন কেন?* *.* *আবুবকর (রাঃ) বললেন, আয়েশা এই* *কথাটার উল্টা চিন্তা করে* *দেখো, কারো* *ভাঙ্গা মন জোড়া লাগালে* *যেমন আল্লাহ সোজা জান্নাতে* *দিবেন, কারো মন ভাঙলে ও* *আল্লাহ যদি সোজা* *জাহান্নামে দিয়ে দেন,* *আমি* *না জানি* *নিজের অজান্তে কতজনের মন* *ভেঙেছি। আল্লাহ যদি* *আমাকে* *জাহান্নামে দিয়ে দেন, সেই* *চিন্ত়ায়* *আমি কাদতেছি।* *(সুবাহানাল্লাহ)* *.* *এই হলো আমাদের ইসলাম,* *দুনিয়ায় থেকে জান্নাতের* *সুসংবাদ* *পাওয়ার পরেও এইভাবে চিন্তা* *করেন। এইভাবে ইসলাম* *আমাদেরকে শিক্ষা দেয়,* *কাউকে কষ্ট না দিতে,* *মানুষের* *কষ্টে পাশে দাড়াতে।* *.* *মুহাম্মাদ (সাঃ) আরো* *বলেছেন,* *যদি* *তুমি গোস্ত রান্না করতে চাও,* *তাহলে* *এক গ্লাস পানি বেশি দিয়ে* *দাও, যাতে* *তোমার গরীব* *প্রতিবেশীকে* *একটু* *দিতে পারো। আর যদি না দিতে* *চাও, তাহলে এমন সময় রান্না* *করবে,* *যখন প্রতিবেশীর বাচ্চা* *ঘুমিয়ে* *থাকে,* *গোস্তের ঘ্রান পেয়ে বাবা-* *মাকে গোস্ত* *খাওয়ার কথা না বলে, গরীব* *বাবা-মা,* *গোস্ত কিনে খাওয়াতে পারবে* *না, মনে* *অনেক কষ্ট পাবে।* *.* *এইভাবে ইসলাম আমাদের শিক্ষা* *দিয়েছে, মুহাম্মাদ (সাঃ)* *আমাদের কে শিক্ষা* *দিয়ে* *গেছেন।* *.* *মানুষের মন না ভাঙতে, মানুষকে* *কষ্ট* *না দিতে।* *.* *আল্লাহ পাক রাব্বুল আ'লামীন* *আমাদেরকে মানুষের কষ্টে* *পাশে দাড়ানোর, মানুষকে কষ্ট* *দেওয়া* *থেকে, মানুষের ভেঙে যাওয়া* *মন* *জোড়া লাগাতে, অন্যের কষ্ট* *ভাগভাগি করতে তাওফিক দান* *করুন।* *আমীন।..* *শেয়ার করুন আপনার মাধ্যমে কেউ* *জানতে পারলে* *সদকায়ে জারিয়া* *হিসেবে গন্য* *হবে, এবং কেয়ামত পর্যন্ত* *এর সওয়াব পাবেন।* *(ইনশাল্লাহ)*
239 views
5 months ago
No more posts
Share on other apps
Facebook
WhatsApp
Copy Link
Delete
Embed
I want to report this post because this post is...
Embed Post