সোমনাথ চ্যাটার্জী

সোমনাথ চ্যাটার্জী

দীর্ঘ রোগভোগের পর প্রয়াত লোকসভার প্রথম বাঙালি স্পিকার সোমনাথ চট্টোপাধ্যায়৷ মৃত্যুকালে তাঁর বসয় হয়েছিল ৮৯ বছর৷ আজ, সোমবার সকাল ৮টা ১৫-য় দক্ষিণ কলকাতার বেলভিউ হাসপাতালে শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি৷গত দু’মাস ধরেই মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছিলেন তিনি৷ চিকিৎসার জন্য তাঁকে ক্রিটিক্যাল কেয়ারে রাখা হয়৷ দীর্ঘ চেষ্টার পরও তাঁকে মৃত্যুর মুখ থেকে আর ফেরাতে পারেননি চিকিৎসকরা৷ সোমনাথবাবুর প্রয়াণে বাংলা তথা দেশের রাজনীতিতে নেমেছে শোকের ছায়া৷গত দু’মাস ধরে ফুসফুস ও কিডনিতে মারাত্মক সংক্রমণ ও সঙ্গে শ্বাসকষ্টে ভুগছিলেন৷ আশঙ্কাজনক অবস্থায় দক্ষিণ কলকাতার বেলভিউ হাসপাতালের ক্রিটিকাল কেয়ারে ভরতি করানো হয়৷ রাখা হয়েছিল ভেন্টিলেশনে৷ মুহূর্তে মুহূর্তে সংজ্ঞা হারাচ্ছিলেন তিনি৷ সংক্রমণ হওয়ার জেরে রবিবার দুপুর থেকে কিডনি ও ফুসফুসের কাজ মাঝে মধ্যেই বন্ধ হয়ে যাচ্ছিল বলে খবর৷ ছিল মাল্টি অর্গ্যান ফেলিওর হওয়ার আশঙ্কা৷ গত ৪৮ ঘণ্টায় লোকসভার প্রাক্তন অধ্যক্ষের শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ার জেরে তাঁকে প্রতি মুহূর্তেই নজরদারিতে রাখা হয়৷ হাসপাতালের তরফে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হলেও তাঁকে আর ফিরিয়ে আনা সম্ভব হয়নি৷
#

সোমনাথ চ্যাটার্জী

সোমনাথ চ্যাটার্জী - ShareChat
439 views
7 months ago
সোমনাথ চট্টোপাধ্যায় : সিপিএমের অন্যায়ের উদাহরণ। ১৩ই আগস্ট ২০১৮: বাংলার রাজনৈতিক বেক্তিত্ব তথা প্রাক্তন লোকসভার স্পিকার, প্রথম বাঙালি স্পিকারও বলতে পারেন, সোমনাথ চট্টোপাধ্যায় ৮৯ বছর বয়সে আজ শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেছেন। তাঁকে শ্রদ্ধা জানাই। তাঁর বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করি। দীর্ঘ দিন দলে থাকলেও ওনাকে সিপিএম দল থেকে বের করে দিয়েছিল মূলত অবাঙালি নেতাদের কথাতেই। বাংলার সিপিএমের নেতারা এ অন্যায় চুপ করে দেখেছে কিছু বলেনি। আজ সোমনাথ চট্টোপাধ্যায়ের মৃত্যুর খবর পেয়েই হ্যাংলার মতো সিপিএমের বেহায়া নেতৃত্ব তাঁর মরদেহের পাশে এসে হাজির হয়েছিল টিভিতে ছবি তোলার জন্য। কিন্তু মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে শেষ শ্রদ্ধার ভার নিয়ে সোমনাথ চট্টোপাধ্যায়ের মরদেহ হাইজ্যাক না করলে ওরা আরো বেহায়াপনা করতো। সোমনাথ চট্টোপাধ্যায়ের মেয়ে আপত্তি না করলে মূর্খের দল লাল পতাকা নিয়ে হাজির হতেন। আসলে দলটাই নমখারামের, এই সিপিএমকে কতবার জিতিয়েছেন সোমনাথ চট্টোপাধ্যায় তাকেই একেবারে অন্যায় ভাবে দল থেকে বের করে দেওয়া হয়। মনে রাখবেন ১০ বারের বিধায়ক তিনি আর তাকেই সামান্য কারণে বহিষ্কার। কারা করেছিলেন বহিস্কার? সীতারাম ইয়েচুরি আর প্রকাশ করাটের মতো চক্রান্তকারীরা! যাদের জ্ঞান আর যোগ্যতা সোমনাথ চট্টোপাধ্যায়ের নখের সমানও নয় তারা! ওনার মেয়ে অনুশীলাও স্বীকার করেন যে এ নিয়ে অনেক দুঃখ ছিল সোমনাথ চট্টোপাধ্যায়ের। তার মৃত্যুর অনেক ঘন্টা কেটে যাওয়ার পর সিপিএমের তরফ থেকে দায় সারা এক বিবৃতিতে সোমনাথ চট্টোপাধ্যায়ের নামের আগে কমরেড ব্যবহার করা হয় না। তিনি ওই দলের জন্য কি কি করেছেন তার উল্লেখ পর্যন্ত করা হয় না। এরা চাইলে সোমনাথ চট্টোপাধ্যায়ের নাম মানুষের মন থেকে মুছে ফেলে দেবে। সোমনাথ চট্টোপাধ্যায়ের নাম ভারতের রাজনৈতিক ইতিহাসের এক উজ্জ্বল নাম। তাঁর কথা যতবার আলোচিত হবে সিপিএমের নামে বাঙালি একবার থুতু ফেলবে।
#

সোমনাথ চ্যাটার্জী

সোমনাথ চ্যাটার্জী - ShareChat
2.4k views
7 months ago
No more posts
Share on other apps
Facebook
WhatsApp
Copy Link
Delete
Embed
I want to report this post because this post is...
Embed Post