বিদেশের খবর

বিদেশের খবর

কৈশোর কেটেছে আমদাবাদের অলি-গলিতে ঘুরে বেড়িয়ে। সত্তরের দশকে আমদাবাদ থেকে আমেরিকায় পাড়ি দেয় তাঁর পরিবার। গুজরাতের বাসিন্দা সেই কিশোরী বেশ কিছু দিন চেষ্টার পরে রপ্ত করেছিলেন নতুন দেশের ভাষা, সংস্কৃতি। গত মাসে নিউ ইয়র্কের সুপ্রিম কোর্টের বিচারক হিসেবে শপথ নিলেন ভারত থেকে আসা উশীর পণ্ডিত ডুর‌্যান্ট। ভারতীয় বংশোদ্ভূত তো বটেই, এর আগে কোনও দক্ষিণ এশীয় মহিলাও আমেরিকায় এই শিরোপা পাননি। প্রথমে আমদাবাদে থাকত বিচারক উশীরের পরিবার। সেখানকার একটি সরকারি স্কুলে পড়তেন তিনি। কিন্তু ইংরেজি একেবারেই শেখানো হত না। সংবাদমাধ্যমকে তিনি জানিয়েছেন, তাঁদের পরিবার আমেরিকায় পাকাপাকি ভাবে বসবাস শুরু করার পরে প্রথমে ভীষণ মুশকিলে পড়েছিলেন তিনি। স্কুলে ইংরেজি পড়ানো হত না বলে এ দেশের মানুষের সঙ্গে কথা বলতে গেলেই সমস্যা হত তাঁর। পর অবশ্য ধীরে ধীরে ইংরেজি শিখে ফেলেন তিনি। রপ্ত করেন মার্কিন সংস্কৃতিও। স্কুলের পড়া শেষ করে সেন্ট জনস বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হন। চার বছর পড়ার পরে সেখান থেকে স্নাতক হন উশীর। তার পর তিন বছর পড়েন নিউ ইয়র্কের ল স্কুলে। ফেব্রুয়ারিতে ৫৭-এ পড়বেন। বিচারক উশীর বললেন, ‘‘ল স্কুল থেকে বেরিয়ে সকলেই চায় কোনও বড় ল ফার্মে যোগ দিয়ে নিশ্চিন্তের চাকরি। সেই রাস্তায় হাঁটতে চাইনি। ল স্কুল থেকে পড়া শেষ করে প্রথমে সহকারী ডিস্ট্রিক্ট অ্যাটর্নি হিসেবে কুইনস প্রদেশের অ্যাটর্নির দফতরে যোগ দিই।’’ গীতা ছুঁয়ে শপথ নিয়েছেন উশীর। সুপ্রিম কোর্টের বিচারক হওয়ার পরে তিনি এখন থেকে কুইন্স কাউন্টির অপরাধমূলক মামলা বিচার করবেন।
#

বিদেশের খবর

বিদেশের খবর - * - THE UPDATE NEWS - 2 . . . a গত মাসে নিউ ইয়র্কের সুপ্রিম কোর্টের বিচারক হিসেবে । শপথ নিলেন ভারত থেকে আসা উশীর পণ্ডিত ডুরান্ট । ভারতীয় বংশােদ্ভূত তাে বটেই , এর আগে কোনও দক্ষিণ এশীয় মহিলাও আমেরিকায় এই শিরােপা পাননি৷ নিউ ইয়র্কে বিচারক আমদাবাদের উশীর - ShareChat
186 views
1 months ago
যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ার সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের বিচারপতি হয়েছেন হালিম ধানিদিনা। যুক্তরাষ্ট্রে কোনো মুসলিম বিচারপতি হিসেবে তিনিই আইন বিভাগে সর্বোচ্চ এই পদ লাভ করলেন। সম্প্রতি আদালতের আপিল বিভাগের উচ্চ পদে তাকে এ পদোন্নতি দেয়া হয়। তার এ নিয়োগ ক্যালিফোর্নিয়ার ঐতিহাসিক ঘটনা হিসাবে বিবেচনা করছেন স্থানীয়রা। আমেরিকাজুড়ে ইসলামফোবিয়ার এই দুঃসহ সময়ে হালিম ধানিদিনার এমন সাফল্য আমেরিকান মুসলিমদের মনে বেশ আশা ও উৎসাহ সঞ্চার করেছে। হালিমের জন্ম আমেরিকার শিকাগোতে। তবে তার মা বাবা দুইজনই ভারতীয়। বিয়ের পর তারা ভারতের গুজরাট থেকে প্রথমে পূর্ব আফ্রিকায় স্থনান্তরিত হন। এরপর সেখান থেকে আমেরিকায় স্থায়ীভাবে বসবাস শুরু করেন। হালিম বলেন, ক্যালিফোর্নিয়ার সুপ্রিম কোর্টে প্রথম মুসলিম হিসেবে নিযুক্ত হওয়ার বিষয়ে আমি খুব বেশি চিন্তা করিনি এবং তা আশা কিংবা কল্পনাও করিনি। তার কৃতিত্বপূর্ণ পদোন্নতি ও নিয়োগের কারণে ক্যালিফোর্নিয়ার স্থানীয় মুসলমানরা বেশ খুশি হয়েছে। তার মাধ্যমে ক্যালিফোর্নিয়ান মুসলমানদের সঙ্গে লস এঞ্জেলেসের ইহুদিদের সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি রক্ষায় সুন্দর পরিবেশ তৈরি হবে বলে তাদের বিশ্বাস। মার্কিন আদালতের একমাত্র মুসলিম বিচারক হিসাবে কাজ করতে গিয়ে ধানিদিনাকে বৈষম্যমূলক ও লাঞ্ছনাকর বিভিন্ন পরিস্থিতির মুখোমুখি হতে হয়েছে। ইসলামফোবিয়া ও ভিনদেশি হওয়ায় দেশীয় বিভিন্ন নিয়ম-নীতি মোকাবেলা করে আসতে হয়েছে তাকে। অনেকে তার গণতান্ত্রিক ভূমিকা নিয়ে সন্দেহও পোষণ করেছিল। কিন্তু হালিম অকাট্যভাবে বলে দিয়েছেন, আমি বিব্রতকর ও পরিণামদর্শী মন্তব্যগুলো মোকাবেলা করার কৌশল রপ্ত করে নিয়েছি। আর আমি এও বুঝতে শুরু করেছি যে, আমার মতো কোনো মুসলিম বিচারক না হলে, তাকে এত ধরনের ভীতিপূর্ণ মন্তব্যের মুখোমুখি হতে হতো না। বিচারক অ্যান্ড্রু কিম তার সহকর্মী ধানিদিনা সম্পর্কে বলেন, বিচারব্যবস্থা বিষয়ে যখন আমি তার সঙ্গে কথা বলেছি, তখন স্পষ্টভাবে বুঝতে পেরেছি যে অভিজ্ঞতা-দক্ষতা এবং জুরির সঙ্গে মজবুত সম্পর্ক বজায় রাখার কারণে হালিমের জন্য অপূর্ব-সুন্দর ও উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ অপেক্ষা করছে। তার অন্যান্য সহকর্মীরা দৃঢ়তার সঙ্গে আশা করেছেন যে, তিনি রাষ্ট্রের বিভিন্ন ধরনের অপরাধের বিচারের ক্ষেত্রে বিচারমন্ত্রণালয়ে অনুসরণীয় নিয়ম-পদ্ধতি ও দৃষ্টান্ত স্থাপন করবেন। বিচারবোর্ডের সভাপতি আন্দ্রেস রাসেল ধানিদিনা সম্পর্কে বলেন, গত চার বছর ধরে তাকে আমি চিনি। আমেরিকায় সে খুব কঠিন সময় পার করে এসেছে। অন্য ধর্মাবলম্বীদের প্রতি তার শ্রদ্ধাবোধ ও আন্তরিকতা অভূতপূর্ব। আমার বিশ্বাস আমরা একসঙ্গে চমৎকার ও সুচারুভাবে কাজ করতে পারবো।
#

বিদেশের খবর

বিদেশের খবর - + 2 - THE UPDATE NEWS - 2 . . . a # যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ার সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের বিচারপতি হয়েছেন হালিম ধানিদিনা ! যুক্তরাষ্ট্রে কোনাে মুসলিম বিচারপতি হিসেবে তিনিই আইন বিভাগে সর্বোচ্চ এই পদ লাভ করলেন৷ সম্প্রতি আদালতের । আপিল বিভাগের উচ্চ পদে তাকে এ পদোন্নতি দেয়া হয়৷ skbp IM DHANIDINA ঐতিহাসিক ঘটনা , ভারতীয় বংশােদ্ভূত মুসলিম যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ার সুপ্রিম কোর্টের বিচা - ShareChat
3.5k views
1 months ago
রাজনীতি থেকে সরে দাঁড়ানোর পরই নানা সময় শিরোনামে এসেছেন সিনিয়র বুশ। ছবি: এএফপি। ৯৪ বছরের অতুলনীয় জীবনের অবসান ঘটল। এ ভাবেই প্রাক্তন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জর্জ এইচ ডব্লিউ বুশের মৃত্যুসংবাদ জানালেন তাঁর ছেলেমেয়েরা। শুক্রবার মারা গেলেন জর্জ হারবার্ট ওয়াকার বুশ। ঠান্ডা যুদ্ধের শেষের দিকে রাষ্ট্রনেতা হিসাবে আমেরিকাকে কঠিন পরিস্থিতির মধ্যে থেকে টেনে তুলেছিলেন। গোটা বিশ্ব সে জন্যও তাঁকে মনে রাখবে। তবে তাঁর ছেলে আর এক প্রাক্তন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জর্জ ডব্লিউ বুশ জানিয়েছেন, তাঁরা এক পিতাকে হারালেন। টুইটারে তিনি লিখেছেন, “জেব, নিল, মার্ভিন, ডোরো আর আমি দুঃখের সঙ্গে জানাচ্ছি, ৯৪ বছরের অনন্য সাধারণ জীবনের অবসান ঘটল। আমাদের বাবা মারা গেলেন।” গত এপ্রিলেই মারা গিয়েছিলেন স্ত্রী বারবারা বুশ। ৭৩ বছরের দাম্পত্যজীবনের সেই সঙ্গীকে ‘দুনিয়ার প্রিয় নারী’ বলে উল্লেখ করেছিলেন জর্জ এইচ ডব্লিউ বুশ। এর পর কয়েক মাসের মধ্যেই চলে গেলেন তিনি। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ৪১তম প্রেসিডেন্ট হিসাবে তুখোড় বিদেশনীতির জন্য পরিচিতি লাভ করেছিলেন বুশ। গত শতকের আটের দশকে প্রেসিডেন্ট পদে আসীন হওয়ার পর থেকেই ঘটনাবহুল ছিল তাঁর রাজনৈতিক জীবন। তা সে ১৯৮৯-এ তৎকালীন সোভিয়েত ইউনিয়ন ভেঙে পড়াই হোক বা এর বছর দুই পরে ইরাকি লৌহপুরুষ সাদ্দাম হুসেনকে পরাজিত করা। তবে এত কিছু সত্ত্বেও প্রেসিডেন্ট হিসাবে দ্বিতীয় বারের জন্য আমেরিকার সর্বোচ্চ পদে জিততে পারেননি প্রাক্তন সিআইএ প্রধান বুশ। ১৯৯২-তে দেশের বেহাল আর্থিক দশায় সময়ে তাঁকে হারিয়েই প্রেসিডেন্ট পদে এসেছিলেন বিল ক্লিনটন। ১৯২৪ সালের ১২ জুন আমেরিকার ম্যাসাচুসেট্‌সের মিলটন শহরে জন্ম জর্জ এইচ ডব্লিউ বুশের। অভিজাত পরিবারের মধ্যে শুরু থেকেই রাজনৈতিক আবহ ছিল। বাবা প্রেসকট বুশ ছিলেন ব্যাঙ্কার। পরে যিনি কানেকটিকাটের সেনেটর হিসাবে মার্কিন কংগ্রেসেও নির্বাচিত হন। ইয়েল বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ডিগ্রিলাভের আগেই মাত্র আঠারো বছরে মার্কিন নৌসেনায় যোগ দেন বুশ। এর পর দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সেনানী হিসাবে দায়িত্ব সেরে বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা শুরু করেন। এরই মধ্যে ১৯৪৫-এর বিয়ে করেন বারবার পিয়ার্সকে। তাঁদের ছ’সন্তান হয়। তবে শৈশবেই মারা যায় রবিন নামে এক সন্তান। ব্যাঙ্কার হিসাবে কর্মজীবন শুরু না করে এক সময় সকলকে অবাক করে পশ্চিম টেক্সাসে তেলের ব্যবসা শুরু করেন। তাতে সাফল্যও মেলে। ১৯৫৮-এর মধ্যে হিউস্টনে অফশোর ড্রিলিং সংস্থার প্রেসিডেন্ট হন তিনি। এর পর ছয়ের দশকে রাজনীতিতে যোগদান। স্থানীয় রিপাবলিকান পার্টির চেয়ারম্যান থেকে শুরু করে দেশের প্রেসিডেন্ট পদে নির্বাচিত হন ১৯৮১-এ। রাজনীতি থেকে সরে দাঁড়ানোর পরও নানা সময় শিরোনামে এসেছেন সিনিয়র বুশ। নৌসেনার সেনানী থাকার সময় একটি শপথ নিয়েছিলেন। তা মেটাতে নিজের ৭৫, ৮০ এবং ৯০তম জন্মদিনে বিমান থেকে ঝাঁপ দিয়ে স্কাইডাইভিং করেছেন। আবার ২০০৪-এ সুনামিতে বিপন্ন মানুষদের অর্থসাহায্যে এগিয়ে এসেছেন। কখনও বা তাঁকে দেখা গিয়েছে ২০১০-এ হাইতির ভূমিকম্পে ক্ষতিগ্রস্তদের পাশেও দাঁড়াতে। জন অ্যাডামসের পর তিনিই হলেন দ্বিতীয় মার্কিন প্রেসিডেন্ট যাঁর ছেলেও প্রেসিডেন্ট হয়েছিলেন। সিনিয়র বুশের মৃত্যুতে শোকগ্রস্ত সেই ছেলে জর্জ ডব্লিউ বুশ এ দিন লিখেছেন, “জর্জ এইচ ডব্লিউ বুশ এক অনন্য চরিত্রের অধিকারী ছিলেন। বাবা হিসাবে সেরা ছিলেন তিনি।”
#

বিদেশের খবর

বিদেশের খবর - ' + F THE UPDATE NEWSc . . . Q । # কিছু - মৃত্যু - খুশি - নিয়ে - আসে - মারা গেলেন বিশ্ব | শয়তানের পিতা আমেরিকার ৪১ তম প্রেসিডেন্ট । # জর্জ _ এইচ - ডব্লিউ বুশ . . ! | ঘটনাবহুল জীবনের অবসান , ৯৪ - এ প্রয়াত প্রাক্তন মার্কিন প্রেসিডেন্ট বুশ - ShareChat
4.2k views
2 months ago
বিশ্বের বসবাসযোগ্য নিরাপদ দেশের তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে সংযুক্ত আরব আমিরাত। তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে আসতে তারা পেছনে ফেলেছে যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, ফ্রান্স, ইতালি, সিঙ্গাপুর ও থাইল্যান্ডের মতো বিশ্বের উন্নত সব দেশকে। যুক্তরাজ্য ভিত্তিক ভ্রমণবিষয়ক ম্যাগাজিন ‘হুইস’ এর সম্প্রতি প্রকাশিত এক তালিকায় এ তথ্য উঠে এসেছে। কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যমের এক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, নিরাপদ দেশের তালিকায় আমিরাতের ওপরে শুধু ইউরোপের দ্বীপরাষ্ট্র আইসল্যান্ড। কিন্তু ম্যাগাজিনটির প্রতিবেদনে আমিরাত ও আইসল্যান্ড দুই দেশকেই সমান ৬ দশমিক ৬ পয়েন্ট দেয়া হয়েছে। ভ্রমণবিষয়ক ম্যাগাজিন ‘হুইস’ এর প্রকাশিত তালিকায় মোট ২০টি দেশের নাম উল্লেখ করা হয়েছে। মূলত ওয়ার্ল্ড ইকোনোমিক ফান্ড, ওয়ার্ল্ড রিস্ক রিপোর্ট, ফরেন এন্ড কমনওয়েলথ অফিসসহ (এফসিও) আন্তর্জাতিক বেশ কিছু প্রতিষ্ঠানের অপরাধ, প্রাকৃতিক দুর্যোগের মাত্রা, স্বাস্থ্য ও অন্যান্য ঝুঁকি নিয়ে বৈশ্বিক জরিপের ওপর ভিত্তি করেই এ তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে।
#

বিদেশের খবর

বিদেশের খবর - + P - THE UPDATE NEWS - . . . a | বিশ্বের বসবাসযােগ্য নিরাপদ দেশের তালিকায় দ্বিতীয় । স্থানে রয়েছে সংযুক্ত আরব আমিরাত৷ তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে আসতে তারা পেছনে ফেলেছে যুক্তরাষ্ট্র , যুক্তরাজ্য , ফ্রান্স , ইতালি , সিঙ্গাপুর ও থাইল্যান্ডের মতাে বিশ্বের উন্নত সব দেশকে যুক্তরাজ্য ভিত্তিক ভ্রমণবিষয়ক ম্যাগাজিন হুইস ' এর সম্প্রতি প্রকাশিত এক তালিকায় এ | তথ্য উঠে এসেছে৷ বিশ্বের নিরাপদ দেশগুলির প্রথম আইসল্যান্ড , দ্বিতীয় আমিরাত | TDN Bangla - ShareChat
207 views
3 months ago
ফের বন্দুকবাজের গুলিতে কেঁপে উঠল লস এঞ্জেলেস। ছড়াল আতঙ্ক। একটি নাইটক্লাবে বন্দুকবাজের হামলায় অন্তত ১২ জনের মৃত্যু হয়েছে। যাঁর মধ্যে রয়েছেন এক পুলিশকর্মীও। পরে পালটা গুলির লড়াইয়ে নিহত হয় বন্দুকবাজ। স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার রাতে কলেজ পড়ুয়াদের নিয়ে একটি অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছিল ক্যালিফোর্নিয়ার এই শহরের একটি নাইটক্লাবে। দু’শোরও বেশি ছাত্রছাত্রী অনুষ্ঠানে হাজির হয়েছিলেন। আর তখনই বন্দুকবাজের হামলায় আতঙ্কিত হয়ে পড়েন সকলে। নাইটক্লাবে ঢুকে এলোপাথারি গুলি চালাতে শুরু করে হামলাকারী। ব্যবহার করা হয় স্মোক গ্রেনেডও। ঘটনায় মৃত্যু হয় এক পুলিশ কর্মী-সহ ১২ জনের। ২৯ বছরের পুলিশ কর্মী রেখে গেলেন তাঁর স্ত্রী ও সন্তানকে। পালটা আক্রমণ চালায় পুলিশ। ভিড়ের মধ্যে থেকেই পরে বন্দুকবাজের মৃতদেহও উদ্ধার করা হয়। শান্ত নিরিবিলি পরিবেশের জন্যই বিখ্যাত লস এঞ্জেলেসের এই বর্ডারলাইন বার অ্যান্ড গ্রিল। নাইটক্লাবের আশেপাশে জনবসতিও রয়েছে। ফলে এমন জায়গায় গুলি চলার ঘটনায় উত্তেজনা ছড়ায়। এক প্রত্যক্ষদর্শী সংবাদমাধ্যমকে জানান, রাত সাড়ে ১১টা নাগাদ হঠাৎই এক ব্যক্তি কালো পোশাক পরে নাইটক্লাবে ঢুকে পড়ে। তারপরই পিস্তল উঁচিয়ে গুলি চালাতে শুরু করে। ভয়ে সেখানে উপস্থিত পড়ুয়ারা চেয়ার ছুড়ে নাইটক্লাবের দরজা-জানলার কাচ ভেঙে বাইরে আসার চেষ্টা করতে থাকে। ঘটনায় আহতও হন বহু। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এনে আহতদের হাসপাতালে নিয়ে যায় পুলিশ। তাদের তরফে জানানো হয়েছে, অন্তত ৩০ বার গুলি চলার শব্দ শোনা গিয়েছে। তাদের ধারণা পূর্ব পরিকল্পনা মাফিকই হামলা করা হয়েছে। ১৮ থেকে ২০ বছরের পড়ুয়াদেরই লক্ষ্য করে গুলি চালানো হয়েছে। তবে এই হামলার সঙ্গে কোনও জঙ্গি যোগ রয়েছে কিনা, তাও খতিয়ে দেখা হচ্ছে।
#

বিদেশের খবর

বিদেশের খবর - + - THE UPDATE NEWS - 2 . . . a | ফের বন্দুকবাজের গুলিতে কেঁপে উঠল লস এঞ্জেলেস । ছড়াল আতঙ্ক ! একটি নাইটক্লাবে বন্দুকবাজের হামলায় অন্তত ১২ জনের মৃত্যু হয়েছে । যার মধ্যে রয়েছেন এক পুলিশকর্মীও৷ পরে পালটা গুলির লড়াইয়ে নিহত হয় বন্দুকবাজ । ক্যালিফোর্নিয়ায় বন্দুকবাজের হামলায় মৃত অন্তত ১২ , ছড়াল আতঙ্ক - ShareChat
218 views
3 months ago
আগামী বছর চিনের আলিবাবা সংস্থার এগজিকিউটিভ চেয়ারম্যানের পদ থেকে সরে যাবেন জ্যাক মা। আজ ৫৪-তম জন্মদিনে এই ঘোষণা করেছেন তিনি। নিজের উত্তরসূরি হিসেবে সংস্থার সিইও ড্যানিয়েল ঝ্যাংয়ের নাম ঘোষণা করেছেন জ্যাক। তিনি সব কর্মীকে লেখা চিঠিতে জানিয়েছেন, আগামী বছরের ১০ সেপ্টেম্বর নয়া দায়িত্ব নেবেন ড্যানিয়েল। তবে আলিবাবার বোর্ডে থাকবেন জ্যাক। চিনের ই-কমার্স জায়ান্ট আলিবাবা প্রাক্তন ইংরাজি শিক্ষক জ্যাকের হাত ধরে ৪২০ বিলিয়ন মার্কিন ডলারবিশিষ্ট সংস্থা হয়ে উঠেছে। শিল্পপতি হিসেবে চমকপ্রদ সাফল্য পেয়েছেন জ্যাক। তিনি চিনের কর্পোরেট আইকন হয়ে উঠেছেন। গত কয়েকদিন ধরেই তাঁর সরে যাওয়া নিয়ে জল্পনা চলছিল। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের একটি সংবাদমাধ্যম জানায়, ৫৪-তম জন্মদিনে অবসরের কথা ঘোষণা করবেন জ্যাক। আলিবাবা সেই খবর অস্বীকার করলেও, শেষপর্যন্ত আজই সরে দাঁড়ানোর কথা জানিয়ে দিলেন এই শিল্পপতি।
#

বিদেশের খবর

বিদেশের খবর - THE UPDATE NEWS * [ SONGE EZAZ ] ? ®® # আলিবাবা - জ্যাকমা - আগামী বছর চিনের আলিবাবা । সংস্থার এগজিকিউটিভ চেয়ারম্যানের পদ থেকে সরে যাবেন জ্যাক মা ! আজ ৫৪ - তম জন্মদিনে এই । ঘােষণা করেছেন তিনি । নিজের উত্তরসূরি হিসেবে সংস্থার সিইও ড্যানিয়েল ঝ্যাংয়ের নাম ঘােষণা করেছেন জ্যাক । তিনি সব কর্মীকে লেখা চিঠিতে জানিয়েছেন , আগামী বছরের ১০ সেপ্টেম্বর নয়া । দায়িত্ব নেবেন ড্যানিয়েল । তবে আলিবাবার বাের্ডে থাকবেন জ্যাক । আগামী বছর সরে যাবেন , ৫৪ - তম জন্মদিনে ঘােষণা আলিবাবাকে ৪২০ বিলিয়ন . . . । - ShareChat
228 views
5 months ago
জোড়া বিমান দুর্ঘটনায় ২৩ জনের মৃত্যু হল সুইত্জারল্যান্ডে। শনিবার আল্পস পর্বতমালায় এই দুর্ঘটনা ঘটেছে বলে জানা গিয়েছে। জেইউ-এআইআর এয়ারলাইনের জেইউ ৫২ বিমান দুই চালক-সহ ১৭ জন যাত্রী নিয়ে ভেঙে পড়ে পিজ সেগানস পর্বতের কোলে। এয়ারলাইন কর্তৃপক্ষ দুর্ঘনটার খবর টুইটে জানালেও বিস্তারিত তথ্য দেওয়া হয়নি। তাদের ওয়েবসাইটে জানানো হয়েছে, “দুঃখের সঙ্গে জানানো হচ্ছে দুর্ঘটনার কবলে পড়েছে জেইউ ৫২ বিমানটি। তবে, বিস্তারিত খবর এই মুহূর্তে জানা যায়নি।”ঘটনাস্থলে উদ্ধারকাজে পাঁচটি হেলিকপ্টার এবং সেনা নামানো হয়েছে। তবে, দুর্গম এলাকা দরুন উদ্ধাকাজ ব্যাহত হচ্ছে বলে টুইটারে জানায় পুলিস। শনিবার রাতে দুর্ঘটনা স্থলে পৌঁছতে পারেনি পুলিস এবং বিমান সংস্থার উদ্ধারকারী দল। দুর্ঘটনাস্থলটি সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ২৪৫০ মিটার উঁচু। স্থানীয় সংবাদমাধ্যম ব্লিক জানাচ্ছে, বিমানের পাইলট-সহ সব যাত্রীরই মৃত্যু হয়েছে। শনিবার অন্য একটি বিমান ঘটনায় মৃত্যু হয় ৪ জনের। নিদওয়ালদেন প্রদেশে রেংগ পর্বতে ভেঙে পড়ে ছোট্ট বিমানটি। জানা গিয়েছে একই পরিবারের চার জনের মৃত্যু হয়। দুটি ঘটনায় তদন্তে নেমেছে সুইত্জারল্যান্ডের পুলিস।
#

বিদেশের খবর

বিদেশের খবর - ShareChat
534 views
6 months ago
Share on other apps
Facebook
WhatsApp
Copy Link
Delete
Embed
I want to report this post because this post is...
Embed Post